Time ****** KMT(+3.00)

হযরত যাইনাব আলাইহাস সালাম

সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, বিনতু রসূল আল ঊলা সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাইনাব আলাইহাস সালাম উনার সংক্ষিপ্ত  সাওয়ানেহে ওমরী মুবারক


মুবারক পরিচিতি
সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মহাসম্মানিত আবনা তথা ছেলে আওলাদ আলাইহিমুস সালাম এবং মহাসম্মানিতা বানাত তথা মেয়ে আওলাদ আলাইহিন্নাস সালাম উনারা ছিলেন মোট আট () জন। সুবহানাল্লাহ!
সাইয়্যিদুনা হযরত ইবরাহীম আলাইহিস সালাম তিনি শুধু উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত মারিয়া ক্বিবত্বীয়াহ আলাইহাস সালাম উনার মাধ্যমে দুনিয়ার যমীনে সম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেছেন। আর অন্যান্য সকল আবনা আলাইহিমুস সালাম এবং বানাত আলাইহিন্নাস সালাম উনারা উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার মাধ্যেমে দুনিয়ার যমীনে সম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেছেন। সুবহানাল্লাহ!
সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি হচ্ছেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত বানাত আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মধ্যেঊলাবা প্রথমা। সুবহানাল্লাহ! আর নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার আবনা আলাইহিমুস সালাম এবং বানাত আলাইহিন্নাস সালাম উনাদের মধ্যে তিনি হচ্ছেন দ্বিতীয়। সুবহানাল্লাহ!

বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ
বিনতু রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত ক্বাসিম আলাইহি সালাম উনার পর আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মানিত নুবুওওয়াত মুবারক প্রকাশের প্রায় ১১ বছর পূর্বে ২১ শে জুমাদাল উখরা শরীফ ইয়াওমুল ইছনাইনিল আযীম শরীফ বা ফজর মহাসম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ! তখন দুনিয়াবী জিন্দেগী মুবারক অনুযায়ী নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত বয়স মুবারক ২৯ বৎসর পার হয়ে ৩০ বৎসর চলতে ছিলেন। আর উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার বয়স মুবারক ছিলেন ৪৪ বছর। সুবহানাল্লাহ!
সম্মানিত নাম মুবারক
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার সম্মানিত আওলাদ, লখতে জিগার সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশের সপ্তম দিনে উনার সম্মানিত আক্বীক্বাহ মুবারক দেন এবং সম্মানিত নাম মুবারক রাখেন হযরত যাইনাব আলাইহাস সালাম সুবহানাল্লাহ!

লক্বব মুবারক
সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি শুধু মহান আল্লাহ পাক তিনি নন এবং নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি নন; এছাড়া যত সম্মানিত লক্বব মুবারক রয়েছে সমস্ত সম্মানিত লক্বব মুবারক উনাদের মালিক হচ্ছেন তিনি। সুবহানাল্লাহ! বিনতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, বিদ্বআতুম মির রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম, উম্মু আবীহা, সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ, ঊলা, আত ত্বাহিরাহ, আত ত্বইয়িবাহ, আর রদ্বিয়াহ, আল মারদ্বিইয়্যাহ ইত্যাদি উনার সম্মানিত বিশেষ লক্বব মুবারক উনাদের অন্তর্ভুক্ত।
সম্মানিত লালন-পালন মুবারক
সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি উনার সম্মানিত পিতা নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং সম্মানিতা মাতা উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনাদের সর্বাধিক সম্মানিত আদর-যতœ মুবারক-, সম্মানিত তত্ত্বাবধান মুবারক- লালিত-পালিত হয়েছেন। সুবহানাল্লাহ!

ইলম মুবারক
মহান আল্লাহ পাক তিনি এবং নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনাকে সৃষ্টির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সমস্ত প্রকার ইলম মুবারক হাদিয়া করেছেন। সুবহানাল্লাহ!

সম্মানিত ছূরত মুবারক:
উম্মু আবীহা, সাইয়্যিদাতু নিসায়িল আলামীনাল ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত ছূরত মুবারক ছিল অত্যন্ত সুন্দর, বেমিছাল বা তুলনাহীন। উনার মেছাল বা দৃষ্টান্ত তিনি নিজেই। সুবহানাল্লাহ!
মুজাদ্দিদে যম সম্মানিত রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “হযরত বানাতু রসূলিল্লাহি ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনারা প্রত্যেকেই প্রত্যেকের মাক্বাম মুবারক- অনন্যা। সুবহানাল্লাহ! সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম তিনি যেরূপ নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার হুবহু নকশা মুবারক ছিলেন, তদ্রƒ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি ছিলেন উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার হুবহু নকশা মুবারক। সুবহানাল্লাহ!

পবিত্রতা মুবারক
 মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন,
اِنَّـمَا يُرِيْدُ الله لِيُذْهِبَ عَنْكُمُ الرّجْسَ اَهْلَ الْبَيْتِ وَيُـطَـهّـرَكُمْ تَطْهِيْراً.
অর্থ: “হে সম্মানিত হযরত আহলু বাইত শরীফ আলাইহিমুস সালাম, নিশ্চয়ই মহান আল্লাহ পাক তিনি চান আপনাদের থেকে সমস্ত প্রকার অপবিত্রতা দূর করে পবিত্র করার মতো পবিত্র করতে। অর্থাৎ তিনি আপনাদের থেকে সমস্ত প্রকার অপবিত্রতা দূর করে আপনাদেরকে পবিত্র করার মতো পবিত্র করেই সৃষ্টি মুবারক করেছেন।সুবহানাল্লাহ! (সম্মানিত সূরা আহযাব শরীফ: সম্মানিত আয়াত শরীফ ৩৩)
এই সম্মানিত আয়াত শরীফ উনার পরিপূর্ণ মিছদাক্ব হচ্ছেন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি। সুবহানাল্লাহ! মহান আল্লাহ পাক তিনি সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনাকে পবিত্র করার মতো পবিত্র করেই সৃষ্টি মুবারক করেছেন। সুবহানাল্লাহ!
সম্মানিত আযীমুশ শান শাদী মুবারক:
 সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ ইবনে রবীআলাইহিস সালাম তিনি ছিলেন উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার আপন বোন হযরত হালা বিনতে খুওয়াইলিদ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনার সম্মানিত আওলাদ। অর্থাৎ তিনি হচ্ছেন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার আপন খালাতো ভাই। তিনি যাবতীয় উত্তম গুণাবলী মুবারক উনাদের অধিকারী ছিলেন এবং সম্মানিত মক্কা শরীফ- অত্যন্ত সৎ বিশ্বস্ত ব্যক্তিত্ব মুবারক হিসেবে সকলের মাঝে পরিচিত ছিলেন। সুবহানাল্লাহ!
আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মানিত নুবুওওয়াত মুবারক প্রকাশ পাওয়ার পূর্বে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উনার লখতে জিগার সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সাথে সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনার আযীমুশ শান শাদী মুবারক সম্পন্ন করেন। সুবহানাল্লাহ!

সম্মানিত আযীমুশ শান শাদী মুবারক- সম্মানিত হাদিয়া মুবারক:
 আযীমুশ শান শাদী মুবারক- নূরে মুজাস্সাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার এবং উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনাদের পক্ষ থেকে সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনাকে যে সকল সম্মানিত হাদিয়া মুবারক দেয়া হয়েছিলো, সে সকল সম্মানিত হাদিয়া মুবারক উনাদের মধ্যে ইয়ামেনের প্রসিদ্ধ আকীক পাথরের একখানা হার মুবারকও ছিলো। এই সম্মানিত হার মুবারকখানা হাদিয়া মুবারক করা হয়েছিলো উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার পক্ষ থেকে। সুবহানাল্লাহ!

ঈমান মুবারক প্রকাশ:
আনুষ্ঠানিকভাবে সম্মানিত নুবুওওয়াত মুবারক প্রকাশ পাওয়ার পর নূরে মুজাস্সাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তা সর্বপ্রথম উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম উনার নিকট প্রকাশ করেন। উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত কুবরা আলাইহাস সালাম তিনিই পুরুষ-মহিলা সকলের পূর্বে সর্বপ্রথম সম্মানিত ঈমান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ! উনার সাথে সাথে উনার সম্মানিত আওলাদ আলাইহিন্নাস সালাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছানিয়াহ আলাইহাস তিনি, সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছালিছাহ আলাইহাস সালাম তিনি এবং সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনারাও সম্মানিত ঈমান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ!
অতঃপর সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি অল্প সময়ের ব্যবধানে সংবাদ মুবারক পাওয়ার সাথে সাথে এসে সম্মানিত ঈমান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ! উনারাই পুরুষ-মহিলা সকলের মাঝে সর্বপ্রথম সম্মানিত ঈমান মুবারক প্রকাশ করেন। সুবহানাল্লাহ!

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক:
সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস তিনি নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বেমেছাল খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দিয়েছেন। এই সম্পর্কে সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে
عَنْ حَضْرَتْ اَلْـحَارِثِ بْنِ الْـحَارِثِ الْغَامِدِىّ رَضِىَ الله تَعَالـٰى عَنْهُ قَالَ قُلْتُ لِاَبِـىْ مَا هٰذِهِ الْـجَمَاعَةُ قَالَ هٰؤُلَاءِ قَوْم اِجْتَمَعُوْا عَلـٰى صَابِئٍ لَّـهُمْ قَالَ فَتَشَرَّفْنَا فَاِذَا رَسُوْلُ اللهِ صَلَّى الله عَلَيْهِ وَسَلَّمَ يَدْعُو النَّاسَ اِلى تَوْحِيْدِ اللهِ عَزَّ وَجَلَّ وَالْاِيْـمَانِ بِهٖ حَتَّى ارْتَفَعَ النَّهَارُ فَتَصَدَّعَ عَنْهُ النَّاسُ وَاَقْبَلَتِ امْرَأَة قَدْ بَدَا نَـحْرُهَا تَبْكِىْ تَـحْمِلُ قَدَحًا وَّمِنْدِيْلًا فَنَاوَلَتْهُ مِنْهَا فَشَرِبَ وَتَوَضَّأَ ثُـمَّ رَفَعَ رَأْسَهٗ اِلَيْهَا فَقَالَ يَا بُنَيَّةُ خَـمِّرِىْ عَلَيْكِ نَـحْرَكِ وَلَا تَـخَافِـىْ عَلى اَبِيْكِ غَلَبَةً وَّلَا ذُلًّا فَقُلْتُ مَنْ هٰذِهٖ قَالُوْا هٰذِهٖ حَضْرَتْ زَيْنَبُ عَلَيْهَا السَّلَامُ ابْنَتُهٗ صَلَّى الله عَلَيْهِ وَسَلَّمَ.
 অর্থ: “হযরত হারিছ ইবনে হারিছ আল গামিদী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বর্ণনা করেন যে, একদা তিনি উনার পিতার সাথে সম্মানিত মক্কা শরীফ- গিয়েছিলেন। সেখানে তিনি একদল লোককে জড়ো হওয়া অবস্থায় দেখতে পেলেন। তখন তিনি উনার সম্মানিত পিতা উনাকে বলেন, হে আমার সম্মানিত পিতা, কি কারণে লোকেরা এখানে জড়ো হয়েছে, এটা কিসের জামায়াত? জবাবে উনার পিতা বলেলন, একজন ব্যক্তিত্ব মুবারক তিনি উনার সম্মানিত নুবুওওয়াত মুবারক রিসালাত মুবারক প্রকাশ করেছেন। এই কারণে উনার সম্প্রদায়ের লোকজন উনার নিকট জমায়েত হয়েছে। তিনি বলেন, অতঃপর আমরা একটু উচু জায়গায় আরোহণ করে দেখতে পেলাম যে, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি তাদেরকে মহান আল্লাহ পাক উনার সম্মানিত তাওহীদ মুবারক সম্মানিত ঈমান মুবারক উনাদের দিকে আহ্বান মুবারক করছেন। জনতা সেখানে দুপুর পর্যন্ত  ছিলো। (তারা উনাকে কষ্ট দিতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হয়েছিলো এবং বিভিন্নজন বিভিন্ন এলোমেলো কথাবার্তা বলতেছিলো।) এরপর লোকেরা চলে যেতে শুরু করলো। তখন একজন সম্মানিতা মহিলা তিনি কাঁদতে কাঁদতে  নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার জন্য এক পাত্র পানি মুবারক একটি রুমাল মুবারক নিয়ে অতি দ্রুতার সাথে সেই দৃশ্যপটে উপস্থিত হলেন। তিনি সেখানে এতো বেকারার  ব্যতিব্যস্ত অবস্থায় উপস্থিত হলেন যে, তিনি তখন নিজেকে যথাযথভাবে আবৃত করতে পারেননি। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি উক্ত পাত্র মুবারক থেকে পানি মুবারক পান করলেন এবং ওযূ মুবারক করলেন। (আর রুমাল মুবারকখানা দিয়ে সম্মানিত মুখম- মুবারক হাত মুবারক মুছলেন।) অতঃপর তিনি উনার মাথা মুবারক উনার দিকে উত্তোলন করে   কথা মুবারক বললেন, হে আমার সম্মানিতা আওলাদ আলাইহাস সালাম, আপনি আপনার চাদর মুবারক দিয়ে নিজেকে আবৃত করুন এবং আপনার পিতার জন্য এতো অধিক চিন্তা করা থেকে বিরত থাকুন। হযরত হারিছ গামিদী রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহু তিনি বলেন, আমি লোকদেরকে জিজ্ঞাসা করলাম। ইনি কে? লোকজন বললো, তিনি হচ্ছেন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিতা আওলাদ, লখতে জিগার সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম।সুবহানাল্লাহ! (আল মুজামুল কাবীর লিত ত্ববারনী /৪৩৩, আল আহাদ ওয়াল মাছানী /১৫৯, মাজমাউয যাওয়াইদ /৪৩৬, জামিউল আহাদীছ ২৩/২১৩)
এইভাবে উম্মু আবীহা সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস তিনিশিয়াবে আবী তালিবথেকে শুরু করে প্রত্যেকটি ক্ষেত্রে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার বেমেছাল সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! বিশেষ করে শিয়াবে আবী ত্বালিবে যখন নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি অবস্থান করেন, তখন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনার সম্মানিত হুজরা শরীফ মুবারক- ছিলেন। তিনি সেখান থেকে যেয়ে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দিয়েছেন। সুবহানাল্লাহ! মূলত উনার থেকেই সমস্ত হযরত ছাহাবায়ে কিরাম রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম উনারা শিক্ষা মুবারক গ্রহণ করেছেন কিভাবে  নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম মুবারক দিতে হয়। সুবহানাল্লাহ!

সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সাথে সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনার বেমেছাল মুহব্বতপূর্ণ সম্পর্ক মুবারক
সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার এবং সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনাদের মাঝে ছিলো বেনযীর মুহব্বতপূর্ণ সম্পর্ক। উনাদের সেই সম্মানিত সম্পর্ক মুবারক উনার গভীরতা প্রকাশ পায়- যখন কুরাইশরা সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনাকে সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার জন্য চাপ দিয়েছিলো তখন।
কুরাইশরা দল বেঁধে সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনার নিকট গিয়ে বললো, ‘আপনি সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যান এবং উনাকে উনার পিতা নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট পৌঁছে দিন। উনার পরিবর্তে আপনি আপনার পছন্দমত কুরাইশদের যে কোনো সুন্দরী নারীকে বিবাহ করতে পারবেন।
কিন্তু সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম তিনি দৃঢ়তার সাথে কুরাইশদের ধারণা বাতিল করে দিলেন। তিনি বললেন, ‘মহান আল্লাহ পাক উনার কসম, তা হয় না। আমি সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার থেকে কস্মিনকালেও বিচ্ছিন্ন হতে পারবো না। উনার পরিবর্তে সমস্ত মহিলা আমাকে দিয়ে দিলেও আমার পক্ষে তা কস্মিনকালেও সম্ভব নয়। সুবহানাল্লাহ!’
সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনার ছানা-ছিফত মুবারক  বর্ণনা
মক্কাবাসীদের নিকট সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম উনার জবাবে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি খুবই সন্তুষ্ট মুবারক হয়েছিলেন। যা তিনি পরবর্তীকালে ইরশাদ মুবারক করেছেন। যখন সাইয়্যিদুনা হযরত কাররামাল্লাহু ওয়াজহাহূ আলাইহি সালাম তিনি আবূ জেহেলের কন্যাকে শাদী মুবারক করতে চেয়েছিলেন তা সাইয়্যিদাতুনা হযরত যাহরা আলাইহাস সালাম উনার নিকট জানতে পেরে নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি খুতবা মুবারক- বলেছিলেন
امَّا بَعْدُ انْكَحْتُ حَضْرَتْ ابَا الْعَاصِ بْنَ الرَّبِيعِ عَلَيْهِ السَّلَامُ فَحَدَّثَنِـىْ وَصَدَقَنِـىْ.
অর্থ: “আমি আমার আওলাদ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনাকে হযরত আবুল আছ ইবনে রবী আলাইহিস সালাম উনার নিকট শাদী মুবারক দিয়েছিলাম। তিনি আমার সাথে প্রশংসনীয় আচরণ মুবারক করেছেন। সুবহানাল্লাহ! তিনি ছিলেন সত্যবাদী এবং  এমন একজন সম্মানিত ব্যক্তিত্ব মুবারক যিনি উনার কথা মুবারক রেখেছেন। সুবহানাল্লাহ!” (বুখারী শরীফ, মুসলিম শরীফ, ইবনে মাজাহ শরীফ, মুসনাদে আহমদ ইত্যাদি)
সম্মানিত হিজরত মুবারক
দ্বিতীয় হিজরী সনের সম্মানিত বদর জিহাদ উনার পর সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি সম্মানিত মদীনা শরীফ- সম্মানিত হিজরত মুবারক করেন। সুবহানাল্লাহ!
শ্রেষ্ঠতম সম্মানিত বানাত আলাইহাস সালাম
এই সম্পর্কে সম্মানিত হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে
عَنْ اُمّ الْـمُؤْمِنِيْنَ حَضْرَتْ عَائِشَةَ عَلَيْهَا السَّلَامُ اَنَّ رَسُوْلَ اللهِ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ قَالَ حَضْرَتْ زَيْنَبُ عَلَيْهَا السَّلَامُ خَيْرُ بَنَاتِـىْ اُصِيْبَتْ فِـىَّ.
অর্থ: “উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত ছিদ্দীক্বা আলাইহাস সালাম উনার থেকে বর্ণিত, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, সাইয়্যিদাতু নিসায়ি আহলিল জান্নাহ হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম  তিনি আমার শ্রেষ্ঠ বানাত (মেয়ে) আমাকে মুহব্বত করার কারণে উনাকে অনেক কষ্ট করতে হয়েছে।” (আল মুজামুল কাবীর ১৬/২৯০, আল মুজামুল আওসাত্ব /৮০, মারিফাতুছ ছাহাবা লি আবী নাঈম ২২/২২২, মাজমাউয যাওয়াদি /৩৪১)

বিছালী শান মুবারক প্রকাশ
সাইয়্যিদুনা হযরত আবুল আছ আলাইহিস সালাম তিনি প্রকাশ্যে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম গ্রহণ করার পর বিনতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি প্রায় দেড় বছর দুনিয়ার যমীনে অবস্থান মুবারক করেন। উনার সম্মানিত বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশ সম্পর্কে কিতাবে উল্লেখ রয়েছে, সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম তিনি যখন সম্মানিত মক্কা শরীফ থেকে সম্মানিত মদীনা শরীফ সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার নিকট হাজির হওয়ার জন্য রওয়ানা হন। পথিমধ্যে উনার উপর হামলা চালালে তিনি উটের পিঠ থেকে পড়ে যান। তিনি তখন হামেলা শান মুবারক- ছিলেন। আঘাতের কারণে উনার একজন সম্মানিত আওলাদ তিনি সম্মানিত বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করা অবস্থায় দুনিয়ার যমীনে তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করেন এবং উনার অনেকনূরুন নাজাত মুবারক’ (রক্ত) মুবারক বের হন। এর ফলে তিনি দীর্ঘ দিন মারিদ্বী শান মুবারক প্রকাশ করেন এবং এই মারিদ্বী শান মুবারক প্রকাশ করা অবস্থায় ৮ম হিজরী সনের ৮ই মুহাররমুল হারাম শরীফ ইয়াওমুল জুমুয়াতি ইশরাকের ওয়াক্তে সম্মানিত মদীনা শরীফ- মহাসম্মানিত বরকতময় বিছালী শান মুবারক প্রকাশ করেন।
এই কারণে সীরত বিশারদগণ উনাদের কেউ কেউ সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্পর্কে বলেছেন যে, তিনি সম্মানিত শাহাদাত মুবারক উনার সম্মানিত মাক্বাম মুবারক উনাকে সম্মানিত করেছেন। সুবহানাল্লাহ!

গোসল মুবারক
 উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত সাওদা আলাইহাস সালাম তিনি, উম্মুল মুমিনীন সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মে সালামা আলাইহাস সালাম তিনি, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মে আয়মন রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উম্মে আতিয়া রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনারা সকলেই সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত গোসল মুবারক- শরীক ছিলেন।
হযরত উম্মে আতিয়্যাহ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা তিনি বলেন, আমি সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত গোসল মুবারক- সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার সম্মানিত আনজাম মুবারক দিয়েছিলাম। নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং নিজে সম্মানিত গোসল মুবারক উনার নিয়ম মুবারক বলে দিয়েছেন।
তিনি বলেছেন, প্রথমে তিন বা পাঁচবার প্রত্যেক সম্মানিত অঙ্গ মুবারক ধৌত করবেন অতঃপর কর্পুর মুবারক লাগাবেন।

সম্মানিত কাফন মুবারক- সম্মানিত বরকতময় চাদর মুবারক প্রদান:
 নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি হযরত উম্মে আতিয়্যাহ রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহা উনাকে বলেন যে, সম্মানিত গোসল মুবারক সম্পন্ন করে আমাকে জানাবেন। গোসল মুবারক শেষে উনার সম্মানিত খিদমত মুবারক- জানানো হলে তিনি উনার একখানা সম্মানিত সম্মানিত চাদর মুবারক দেন এবং বলেন, এটা সম্মানিত কাফন মুবারক উনার সাথে পরিধান করাবেন। সুবহানাল্লাহ!
 অতঃপর সম্মানিত কাফন মুবারক সম্পন্ন করা হয়।

সম্মানিত জানাযা উনার নামায মুবারক
নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি স্বয়ং নিজে সম্মানিত জানাযা উনার নামায মুবারক পড়ান এবং তিনি নিজে সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত রওযা শরীফ মুবারক- তাশরীফ মুবারক গ্রহণ করে উনার লখতে জিগার উনাকে সম্মানিত রওযা শরীফ মুবারক- রাখেন। সুবহানাল্লাহ!

আওলাদ আলাইহিমুস সালাম
সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার মোট তিন জন সম্মানিত আওলাদ আলাইহিমুস সালাম ছিলেন। উনাদের মধ্যে একজন সম্মানিত বিছালী শান মুবারক প্রকাশ অবস্থায় সম্মানিত বরকতময় বিলাদতী শান মুবারক প্রকাশ করেছিলেন। আর বাকী দুই জন সম্মানিত আওলাদ আলাইহিমাস সালাম উনারা হচ্ছেন, সাইয়্যিদাতুনা হযরত উমামা আলাইহাস সালাম এবং সাইয়্যিদুনা হযরত আলী ইবনে আবিল আছ আলাইহিস সালাম

মহান অল্লাহ পাক তিনি মুজাদ্দিদে যম মামদূহ মুর্শিদ ক্বিবলা সাইয়্যিদুনা ইমাম খলীফাতুল্লাহ হযরত আস সাফফাহ  আলাইহিছ ছলাতু ওয়াস সালাম উনার মুবারক উছীলয় আমাদের সবাইকে বিনতু রসূলিল্লাহ ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সাইয়্যিদাতুনা হযরত ঊলা আলাইহাস সালাম উনার সম্মানিত জীবনী মুবারক জানার, উনার সম্মানিত শান-মান, ফাযায়িল-ফযীলত, বুযূর্গী-সম্মান মুবারক জানার, বুঝার, উপলব্ধি করার তাওফীক্ব দান করুন এবং উনার সম্মানিত তাযীম-তাকরীম মুবারক করার, সম্মানিত খিদমত মুবারক উনার আনজাম দেয়ার সম্মানিত ছানা-ছিফত মুবারক করার তাওফীক্ব দান করুন। আমীন!

No comments:

Post a Comment